জনপ্রিয়তায় এগিয়ে মোস্তফা আল মাহমুদ

98

জামালপুর প্রতিনিধিঃ
আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জামালপুর-২ (ইসলামপুর) আসনে জাতীয় পার্টি (জাপা) থেকে মনোনয়ন প্রার্থী ইসলামপুর উপজেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক মোস্তফা আল মাহমুদ। নিজ নির্বাচনী এলাকায় ব্যাপক জনসংযোগসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডেও নিজেকে সম্পৃক্ত রাখছেন। যোগাযোগ রাখছেন জাতীয়পার্টির সর্বোচ্চ মহলেও।
মোস্তফা আল মাহমুদ দীর্ঘদিন ধরে ইসলামপুরবাসীর কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি তিনি জাতীয় পার্টিকে সুসংগঠিত করে চলেছেন। এছাড়াও আসন্ন জাতীয় সংসদ উপলক্ষ্যে তিনি আগাম নির্বাচনী গণসংযোগ, পথসভা ও উঠান বৈঠক করে যাচ্ছেন। এ আসনে তার জনপ্রিয়তা বেশ ঈর্ষণীয়।
এলাকার মানুষের সাথে তার নাড়ীর সম্পর্ক বললে ভুল হবে না। নির্বাচনী এলাকার মানুষের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রয়েছে জাতীয় পার্টির এ নেতার। সেই সাথে বিগত কয়েক বছরে ইসলামপুরে বিশেষ করে তার নির্বাচনী এলাকায় যে উন্নয়ন হয়েছে তা কল্পনাকেও হার মানায়।
তিনি দীর্ঘদিন ধরে ইসলামপুরবাসীর কল্যাণে নানাভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। মোস্তফা আল মাহমুদ ইসলামপুরের দুর্গম মন্নিয়া চরের প্রায় ২০ হাজার হাজার মানুষের জীবনমান উন্নয়নের জন্য সেখানে সোলার মিনি গ্রিড বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করেছেন। এখন ওই বিদ্যুতের সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করে ডিজিটাল যুগের সুযোগ সুবিধায় আলোকিত হয়ে উঠছে দুর্গম মন্নিয়া চরের মানুষজন। বেকারদের চাকরি ও কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করে তিনি সবার মনের মনি কোঠায় স্থান করে নিয়েছেন।
স্থানীয়রা মনে করেন, তাকে জাপা বা মহাজোটের মনোনয়ন দিলে সহজেই বিজয়ী হয়ে আসতে পারবেন।মোস্তফা আল মাহমুদ নদীভাঙ্গন কবলিত ইসলামপুর উপজেলার হতদরিদ্র মানুষের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করছেন । যমুনার বিশাল চরের মানুষকে বিদ্যুতের আওতায় নিয়ে এসে মুন্নিয়ার চরে বসিয়েছেন সোলার বিদ্যুত প্লান্ট। এতে আলোকিত হয়েছে বিশাল চরাঞ্চল। মাস্টার প্লান করে নদীভাঙ্গন রোধ, ইসলামপুরে অর্থনৈতিক জোন স্থাপন করে ব্যবসা বানিজ্য ও কর্মসংস্থানের সৃষ্টি করা ছাড়াও ইসলামপুরের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে নানা পরিকল্পনা রয়েছে তার। ফলে সাধারণ ভোটারা এবার তাকেই চাইছেন এমপি হিসেবে। বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে শেষ পর্যন্ত মহাজোট জাতীয় পার্টির জন্য এই আসনটি ছেড়ে দিবে এমনটাই আশা করছেন পার্টির নেতাকর্মীরা।
মোস্তফা অাল মাহমুদের জনপ্রিয়তার ব্যপারে জানতে চাইলে জামালপুরের ইসলামপুরের জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহ্ববায়ক আনোয়ার হোসেন বলেন, মোস্তফা আল মাহমুদ একজন স্পষ্টভাষী ও সত্যবাদী নেতা। তিনি খোদাভিরু এবং সদাহাস্যোজ্জল একজন জননেতা। মোস্তফা আল মাহমুদ মানুষকে কথা দিয়ে কথা রাখেন। কিছুদিন আগে ডিগ্রীরচর এলাকার মফিজিয়া মাদ্র্রাসার উন্নয়নের জন্য একমাসের মধ্যে ১ মেট্রিক টন রড ও ৫০ ব্যাগ সিমেন্ট দেওয়ার অঙ্গীকার করে তিনদিনের মাথায় তিনি তাহা নিজ দায়িত্বে পৌঁছে দিয়েছেন। একই এলাকার কিছু স্কুল শিক্ষার্থীদের ক্রীড়া অনুষ্ঠানে সহযোগীতার আশ্বাস দিয়েও শতভাগ পূরণ করেছেন। এছাড়াও ডিগ্রীরচর এলাকার অনেক বেকার যুবক ও দরিদ্র নারী-পুরুষকে সাহায্য সহযোগীতা করায় তিনি এই এলাকায় ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন।
আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মহাজোটের মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে যথেষ্ট আশাবাদী এ জাপা নেতা। জাতীয় পার্টি থেকে যাদের মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছেন তিনি। একজন স্বজ্জন, সৎ ও যোগ্য ব্যক্তি হিসেবে এলাকায় সবার কাছে পরিচিত তিনি। স্থানীয় বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে দীর্ঘদিন সংশ্নিষ্ট রয়েছেন এ প্রার্থী। এলাকায় রয়েছে তার নিজস্ব ভোট ব্যাংক। তাই জনগণের সেবক হতে চান তিনি।
আগামী নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার লক্ষ্যে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করে মোস্তফা আল মাহমুদ বলেন, এলাকার তৃণমূল জনগণের সঙ্গে কাজ করছি। আগামী নির্বাচনে যদি আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি নির্বাচনে পৃথকভাবে অংশগ্রহণ করে, সে ক্ষেত্রে তিনি বর্তমান এমপিবিরোধী ৬০ শতাংশ এবং বিএনপির ৫০ শতাংশ ভোট পাওয়ার আশা করেন। আর যদি তিনি মহাজোটের প্রার্থী হন তাহলে সবাই তাকে সমর্থন করবে বলে প্রত্যাশা করেন।বেসরকারী উদ্যোগে সৌর বিদ্যুতায়নের মাধ্যমে যমুনার দুর্গম চরের বিদ্যুত সমস্যা ২০ বছরের জন্য সমাধান করা হয়েছে। ওই চরের মানুষ এখন আর রাতে অন্ধকারে কষ্ট করবে না। ইসলামপুরবাসী সহযোগীতা করলে পর্যায়ক্রমে ইসলামপুরের সকল চরাঞ্চলকে সৌর বিদ্যুতায়নের মাধ্যমে আলোকিত করা হবে। তিনি আরো বলেন, ব্যক্তিগত কাজের পাশাপাশি ইচ্ছা থাকলে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের উদ্বুদ্ধ করে দেশের রাষ্ট্রীয় কাজে সহযোগীতা করে দেশের উন্নয়নে গুরুত্বপূুর্ণ ভুমিকা রাখা সম্ভব। তাই তিনি নিজের সততা, মেধা, বিচক্ষণতা ও কর্মদক্ষতার সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করে সারা দেশ তথা নিজ এলাকার সার্বিক উন্নয়নে ভুমিকা রাখতে চান। সেই লক্ষ অর্জনের জন্যই তিনি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদসহ জাতীয় পার্টির সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের সহযোগৗতায় মহাজোটের প্রার্থী হয়ে আসন্ন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হতে চান। এজন্য তিনি ইসলামপুরবাসী ও তার সকল শুভাকাঙ্খিদের কাছে দোয়া ও সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেছেন।
মেহেদী হাসান
জামালপুর প্রতিনিধি
০৬-১২-২০১৮

ভাগ