আজ বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস – সাজেদুর আবেদিন শান্ত

9

আজ ৭ এপ্রিল, বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে ‘সমতা ও সংহতি নির্ভর সার্বজনীন প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা’। দিবসটিকে উপলক্ষ্য করে প্রতি বছরের মতো এ বছরও বাংলাদেশে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং স্বাস্থ্য বিষয়ক বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলো নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

এ উপলক্ষে গৃহীত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে- জাতীয় পর্যায়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান, সেমিনার আয়োজন, স্যুভেনির প্রকাশ, স্বাস্থ্য শিক্ষা প্রদর্শনী, জাতীয় পত্রিকায় ক্রোড়পত্র প্রকাশ, সড়কদ্বীপ সজ্জিতকরণ, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, জারিগান, সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার উদ্যোগে স্বাস্থ্য সমস্যার ওপর আলোচনা অনুষ্ঠানসহ অন্যান্য কার্যক্রম।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে জাতীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আয়োজিত এ অনুষ্ঠান আজ রবিবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর খামারবাড়িস্থ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে। দেশের সব জেলা ও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তত্ত্বাবধানে স্থানীয় পর্যায়েও বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হবে।

১৯৪৬ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে জাতিসংঘ অর্থনীতি ও সমাজ পরিষদ আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য ক্ষেত্রের সম্মেলন ডাকার সিদ্ধান্ত নেয়। একই বছরের জুন ও জুলাই মাসে আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাংগঠনিক আইন গৃহীত হয়। পরবর্তীতে ১৯৪৮ সালের ৭ এপ্রিল জেনেভা সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যকর হয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এ সম্মেলনেই সিদ্ধান্ত হয় মানুষের সুস্থতা নিশ্চিতকরণ এবং জীবন রক্ষার শপথে এই দিনকে ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস’ হিসেবে পালন করার। আলোচনা মোতাবেক ১৯৫০ সালের ৭ এপ্রিল থেকে দিবসটি পালন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। দিবসটি পালনের জন্য ৭ এপ্রিল বেছে নেওয়ার কারণ, এ দিন সংস্থাটির জন্মদিন।

প্রতিবছর স্থানীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে দিবসটি পালন করার জন্য সংস্থাটি পুরো বিশ্বের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ এমন ইস্যু বেছে নেয়। ১৯৫০ সালে প্রথম বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের প্রতিপাদ্য ছিল ‘নো ইওর হেলথ সার্ভিসেস’ অর্থাৎ ‘নিজের স্বাস্থ্যসেবা সম্পর্কে সচেতন হোন’।

ভাগ