ইঁদুরের উৎপাত থেকে বাঁচতে

10

জামাকাপড় থেকে বই-খাতা, ইঁদুরের হাত থেকে এদের বাঁচিয়ে রাখা বেশ কষ্টসাধ্য। চকচকে পরিষ্কার ঘরেও প্রায়ই হানা দেয় ইঁদুর। কীটনাশক দিয়ে বা পেস্ট কন্ট্রোল সার্ভিসের সাহায্যে ইঁদুর সাময়িক দূর হলেও, কিছুদিন পরেই ফের এই আক্রমণ শুরু হয়।

তা ছাড়া এসব উপায়ে ইঁদুর তাড়াতে গেলে ব্যবহার করতে হয় নানা রাসায়নিক যা শরীরের জন্য মোটেই উপকারী নয়। বিশেষ করে, বাড়িতে শিশু থাকলে তার শ্বাসের মাধ্যমে এসব রাসায়নিক শরীরে প্রবেশ করলে তা স্বাস্থ্যকর নয়। আবার অনেকে অকারণে প্রাণী হত্যা পছন্দ করেন না।

বরং কিছু ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করলে ইঁদুর বাড়িছাড়া হবে সহজেই। এমনিতে ইঁদুরকলের কথা অনেকেরই জানা। এতে ইঁদুরকে না মেরেও আটক করা যায়। কিন্তু সব বাড়িতে কল ব্যবহার করার সুযোগ থাকে না। তাই ইঁদুরকলের বাইরে কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি জানা থাকলে তা ইঁদুরের হাত থেকে পরিত্রাণ দেবে।

লবঙ্গের ঝাঁঝালো গন্ধ ইঁদুরের অত্যন্ত অপ্রিয়। একটা নরম কাপড়ে বেশ কয়েকটি লবঙ্গ জড়িয়ে ঘরের যেসব জায়গায় ইঁদুরের উৎপাত বেশি সেখানে রেখে দিন। ইঁদুর আর ওমুখো হবে না।

ইঁদুর বা কোনো পোকা কেউই শুকনো মরিচের ঝাঁঝ সহ্য করতে পারে না। নরম কোনো কাপড়ে শুকনো মরিচের গুঁড়ো পুরে দিন। এবার ঘরের যেসব জায়গা দিয়ে ইঁদুর প্রবেশ করে সেখানে রেখে দিন এই কাপড়। ইঁদুরের প্রবেশ কমবে।

পিপারমিন্ট তেলে ডুবিয়ে রাখুন তুলো। পিপারমিন্টের গন্ধ একেবারেই সইতে পারে না ইঁদুর। তুলোর এমন ছোট ছোট বল ঘরের বিভিন্ন জায়গায় রাখলে তা সহজেই দূর করবে ইঁদুরের উত্পাৎ।

ঘরের নানা কোনায় বেকিং পাউডার ছড়িয়ে রাখুন। সকালে ঝাঁট দিয়ে দিন। বেকিং সোডার গন্ধও ইঁদুরের অত্যন্ত অপছন্দের। এর প্রকোপে ঘরে ইঁদুরের প্রবেশ রুখে দেয়া যাবে সহজেই। আনন্দবাজার।

ভাগ