৭২ ঘন্টায় দাবী আদায় না হলে বন্ধ হবে চাকা

17

আনিসুর রহমান

আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে ৬ দফা বাস্তবায়ন না হলে বৃহত্তর চট্টগ্রাম অচলের হুমকি দিয়েছে চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ। চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্র“পের উদ্যোগে আজ ১৭ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১১ টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব আবদুল খালেক মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এ হুমকী দেন।সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের মহাসচিব আবুল কালাম আজাদ আরো জানান, বিগত সরকার বিরোধী আন্দোলনের নামে গাড়ি জ্বালাও পোড়াও করে শ্রমিককে অগ্নিদগ্ধ ও অনেক শ্রমিক মৃত্যুবরণও করে এবং গাড়ির মালিকও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সাম্প্রতিক সময়ে পরিবহনের কাগজপত্র যাচাই-বাছাইয়ের অজুহাত দেখিয়ে মামলা-মোকদ্দমা ও টো বাণিজ্য করে কোটি কোটি টাকা জরিমানা আদায় করছে। এ সব থেকে উত্তোরণের জন্য আবুল কালাম আজাদ লিখিত বক্তব্যে আরো জানান ১। সাম্প্রতিক সংসদে উত্থাপিত মটর ভেহিকেল অধ্যাদেশ ২০১৭-২০১৮ আইন ১৯৮৩ সনের আইনের সাথে সামঞ্জস্য রেখে এই আইন সংসদে পাস হওয়ার পূর্বে যাত্রী সাধারণ, মালিক এবং শ্রমিক সহ সড়ক পরিবহন সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে আরো বেশি পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন। তাই সংম্লিষ্টদের মতামত নিতে হবে। এবং বিনা দোষে মালিকের রিমান্ড মেনে নেওয়া যাবে না। ২। বিআরটিএর ফিটনেস ও পারমিট নবায়নে ক্ষেত্রে বিভিন্ন অজুহাতে হয়রানি বন্ধ এবং গণ পরিবহন ও পণ্য পরিবহনে আয়কর বৈষম্য দূর করতে হবে। ৩। গাড়ির ইকোনমিক লাইফ এর অজুহাত দেখিয়ে ফিটনেস ও পারমিট নবায়ন বন্ধ রাখা যাবে না এবং কাগজপত্র বিহীন গাড়ী ছাড়া অন্য কোন গণ ও পণ্য পরিবহন টো ডাম্পিং করা যাবে না। ৪। গণ পরিবহন ও পণ্য পরিবহনে গাড়িকে কেইজ স্লিপের মেয়াদ থাকা অবস্থায় পুনরায় মামলা দেওয়া যাবে না এবং সড়ক মহাসড়কে ও উপসড়কে টেম্পু, সিএনজি, থ্রী হুইলারসহ সকল অননুমোদিত গাড়ি সমূহ পুরোপুরি বন্ধ করতে হবে। ৫। সহজ শর্তে গাড়ির ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করতে হবে। ৬। গণ ও পণ্য পরিবহনের কাগজপত্র হালনাগাদ করার জন্য জরিমানা মওকুফসহ ন্যূনতম ৬ মাস সময় দিতে হবে। আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে দাবিসমূহ মেনে নিতে হবে। অন্যথায় বৃহত্তর চট্টগ্রামে সকল প্রকার গণ ও পণ্য পরিবহনের মালিক ও শ্রমিকেরা স্ব-স্ব গাড়ি বন্ধ রাখবে। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সহ সভাপতি (বাংলাদেশ সড়ক) কফিল উদ্দিন আহম্মদ, মহাসচিব চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্র“প আবুল কালাম আজাদ, কার্যকরী সভাপতি জহুর আহম্মদ, মাহবুবুল হক মিয়া, মোজাফফর আহমদ, গোলাম রসুল বাবুল, মো. গোলাম নবী প্রমুখ।

ভাগ