সবাই সবুজ প্রেমে মগ্ন

164

ঢাকার ভেতরে ও বাইরে বেশ কিছু মনোরম পরিবেশে সম্প্রতি শুরু হল “সবুজ প্রেম” এর শুটিং এর কাজ। এটি প্রযোজনা করছেন মাসুদ মিলন। টিভি বিজ্ঞাপন ও শর্টফিল্ম নির্মাতা বোরহান খান এর পরিচালনায় এটি নির্মিত হচ্ছে। তবে এটি কিসের শুটিং হচ্ছে তা নিয়ে কেউই মুখ খুলতে রাজি হলো না। পরিচালক বোরহান বলেন, ” একটু ব্যাতিক্রম ধর্মী উপস্থাপন এটা। তাই শেষ হওয়ার পরে জানাবো আসলে কি।” তবে বেশ বড় পরিসরেই শুটিং চলছিল। এতে বোঝা যায় ভালো কিছুরই চেষ্টা করছেন তারা। এতে অভিনয় করেছেন অভিনেতা এল আর খান সীমান্ত ও নবাগত নিশাত। হঠাৎ কেন প্রজোযনায় আসলেন এমন প্রশ্নের উত্তরে প্রযোজক মাসুদ মিলন জানান, “আসলে একদম ব্যাতিক্রম একটা চিন্তার কনসেপ্ট। যা আমাকে আসলেই অভিভূত করেছে, তাই এই সিদ্ধান্ত নেয়া।” মূল অভিনেতা সীমান্ত ফ্যাশন হাউজের মডেল হিসেবে যাত্রা শুরু করেন তিনি বর্তমানে দর্জিবাড়ি ফ্যাশন হাউজের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর। তবে এখন বড় পর্দায় কাজ করছেন নিয়মিত। সীমান্তের সাথে কথা হলে তিনি হাসি মুখে জানান, “সবুজ প্রেম নাম শুনে ভেবেছিলাম রোমান্টিক কাজ, তেমন কষ্টের কিছু নেই। তবে স্ক্রিপ্ট পড়ার পর আর শুটিং সেটা এসে আমি উপলব্ধি করলাম প্রচণ্ড পরিশ্রম করতে হচ্ছে। বোরহান ভাই অসংখ্য বার একই শট নিচ্ছেন, আর কিছু সিকুয়েন্স আছে খুব শারীরিক পরিশ্রম করতে হচ্ছে। তবে এতে কোনো আক্ষেপ নাই কারন কাজ ভালো হচ্ছে।” দেখা গেলো কোনো একটা দৃশ্যের জন্য বার বার গাছে উঠতে হচ্ছে নামতে হচ্ছে তাকে। নবাগত নিশাত খুবই উচ্ছসিত শুটিং নিয়ে। এর আগে বিজ্ঞাপনের স্থির চিত্রে বেশ কিছু কাজ করেছে সে, কিন্তু ভিডিও চিত্রের কাজ এই প্রথম তার। আর নিশাত এ ব্যাপারে বলেন, “আমি অনেক উপভোগ করছি। সময় কিভাবে কেটে যাচ্ছে বুঝতেই পারছি না। অনেক সুন্দর একটা গল্পে তৈরী হচ্ছে “সবুজ প্রেম”। পরিচালক বোরহান খান ভাইর চিন্তা ধারায় ব্যাতিক্রম, সবার অনেক ভালো লাগবে আশা করি ।” শুটিং শেষ হয়ে এখন এডিটিং এর টেবিলে সবুজ প্রেম, সহকারী পরিচালক তুর্জ ও রাধিনের কাছে জানা যায়। ডিওপির কাজ করেছেন চন্দন এবং গ্রাফিক্স ডিজাইনে আছেন ইসমাইল লিখন। পরিশেষে কি দাঁড়ায় সেটা মুক্তির পরেই দেখা যাবে।

বা থেকে জাতীয় ভলিবল দলের খেলোয়াড় কায়সার হামিদ, পরিচালক বোরহান খান, প্রযোজক মাসুদ মিলন ও গল্পের মূল চরিত্র সীমান্ত খান (প্রযোজক মাসুদ মিলন এর ফেসবুক থেকে সংগৃহিত)

ভাগ