ঢাকা – ১৪ আসনে জনপ্রিয়তার শীর্ষে মাজহারুল আনাম

745

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন কেমন হবে তা নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। নির্বাচনের বাকী এখনও অনেক সময় থাকলেও, কে কোন আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পাবেন তা নিয়ে সারা দেশ ব্যাপি চলছে গবেষনা।

এই উত্তাপ মূলতঃ প্রধানমন্ত্রীর এক ঘোষনার পরপরই ছড়িয়ে পড়ে। প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘এবার কাউকে পাস করানোর দায়িত্ব আমি নিতে পারবো না। এবার যার যার জয় সে-ই ছিনিয়ে আনতে হবে।’
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছে, আগামী নির্বাচন নিয়ে নেত্রীর নিজস্ব চিন্তাভাবনা ও হিসাবনিকাশ শুরু হয়ে গেছে। কাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে, কে মনোনয়ন পাওয়ার যোগ্য, এসব বিষয়গুলো গুরুত্ব দিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। নিয়মিত এগুলো নিয়ে স্ট্যাডি করছেন প্রধানমন্ত্রী এমন তথ্যও জানিয়েছে তার ঘনিষ্ঠ সূত্র। অন্য দুটি সূত্র জানায়, সভাপতি শেখ হাসিনা এবার দুইশ আসনে এমন প্রার্থী দিতে চান, যারা মনোনয়ন পাওয়া মানেই তাদের বিজয় নিশ্চিত। এ ধরনের প্রার্থী খুঁজে বের করতে কাজ করছেন তিনি। এছাড়াও গোয়েন্দা প্রতিবেদনের উপরও বিশেষ জোর দেওয়া হয়েছে। এদিকে ঢাকা – ১৪ আসনে নৌকার প্রার্থী হিসেবে অনেক এগিয়ে আছের দারুস্সালাম থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি মাজহারুল আনাম।

স্থানীয় নেতা-কর্মী এবং আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা যায়, ঢাকা ১৪ আসনের নৌকা প্রতীক নিয়ে এবার মূল প্রতিদ্বন্দিতা হবে সরকারি বাঙলা কলেজের সাবেক জি.এস, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান দারুস সালাম থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ.বি.এম মাজহারুল আনাম এবং ঢাকা ১৪ আসনের বর্তমান এম.পি আসলামুল হকের মধ্যে।

এ.বি.এম মাজহারুল আনাম দীর্ঘদিন থেকে স্থানীয় মানুষের সুখে দুঃখে পাশে থাকার কারণে সবার ভালবাসা তিনি বরাবরই পেয়ে এসেছেন। মিরপুরের স্থানীয় জনগণ ভালবেসে তাকে মিরপুরের মাটি ও মানুষের নেতা বলে। ব্যক্তি এ.বি.এম মাজহারুল আনাম সৎ রাজনীতিবিদ হিসেবে সকল মহলে পরিচিত। অন্য নেতাদের মতো তার বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক কোন দূর্নিতির অভিযোগ কেউ কখনও করতে পারেনি।

তাই সব কিছু বিবেচনায় আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পাওয়ার পাল্লা এ.বি.এম মাজহারুল আনামের দিকেই ভারী।

ভাগ