ডোনাল্ড ট্রাম্প তার মেয়ে ইভাঙ্কাকেই জাতিসংঘের পররবর্তী রাষ্ট্রদূত বানাবেন।

6

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার মেয়ে ইভাঙ্কাকেই জাতিসংঘের পররবর্তী রাষ্ট্রদূত বানাবেন। ইরানের প্রেস টিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেছেন আমেরিকার রাজনৈতিক বিশ্লেষক ও ভেটারান্স টুডে পত্রিকার সিনিয়র সম্পাদক গর্ডন ডাফ। খবর রেডিও তেহরানের

গত মঙ্গলবার বর্তমান রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি পদত্যাগের ঘোষণা দেন। এরপর দিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, ইভাঙ্কা জাতিসংঘ রাষ্ট্রদূতের পদের জন্য শ্রদ্ধার পাত্র হবেন না। এছাড়া, আমাকেও স্বজনপ্রীতির জন্য অভিযুক্ত করা হবে। তবে একথা ঠিক যে, বিশ্বের যে কোন ব্যক্তির চেয়ে ইভাঙ্কা এ পদের জন্য বেশি যোগ্য।

আকস্মিকভাবে নিকি হ্যালির পদত্যাগের বিষয়টি নিয়ে নানা জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে। অনেকেই এ নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন।

এ প্রসঙ্গে গর্ডন ডাফ বলেন, নিকি হ্যালি মূলত জাতিসংঘে নানা বক্তব্যের মাধ্যমে আমেরিকাকে হাসির খোরাকে পরিণত করেছেন এবং জাতিসংঘে হ্যালি ছিলেন সবার ঘৃণার ব্যক্তি। এ অবস্থায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এখন তার মেয়ে ইভাঙ্কা এবং জামাই জারেড কুশনারকে দিয়ে মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক ব্যর্থ নীতি বাস্তবায়নের চেষ্টা করবেন।

তবে কংগ্রেসের মধ্যবর্তী নির্বাচনের আগে কিছু হবে না। বরং নির্বাচন শেষ হলে ট্রাম্প তার মেয়েকে জাতিসংঘের রাষ্ট্রদূত নিয়োগ দেবেন। এর মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক নীতি ট্রাম্প তার নিজের হাতে রেখেই বাস্তবায়ন করার পরিকল্পনা করছেন।

বিডি প্রতিদিন/১৪ অক্টোবর ২০১৮/আরাফাত

ভাগ